বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২ইংরেজী, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বাংলা ENG

উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে এবার আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা

শাবি প্রতিনিধি::

২০২২-০১-১৭ ০১:৪৬:০৬ /

পুলিশের হামলা ও বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণার পর উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমদের পদত্যাগ দাবিতে আন্দোলন শুরু করেছেন সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) শিক্ষার্থীরা।

রোববার রাত ৮ টা থেকে তারা বিক্ষোভ শুরু করেন। পরে রাত ১১ টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তমঞ্চের সামনে অবস্থান নিয়ে শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করেন। রাত সাড়ে ১ টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বিক্ষোভ চলছিল। বিক্ষোভে শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন।

রাত ৮টার দিকে জরুরী সিন্ডেকট সভা করে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা ও সোমবার বেলা ১২ টার মধ্যে আবাসিক শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ দেন উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমদ। পরেসিরাজুন্নেসা হলের প্রভোস্ট পদত্যাগও করেন।

এরআগে সন্ধ্যায় তিনদফা দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ও আন্দোলনকারীরা উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রাখার প্রেক্ষিতে পুলিশের সঙ্গ শিক্ষার্থীদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। পুলিশ লাঠিচার্জ, সাউন্ড গ্রেনেড ও টিয়ারশেল ছুঁড়ে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে পুলিশ, শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ অন্তত ৫০ জন আহত হন।

শিক্ষার্থীদের উপর হামলার ঘটনায় সন্ধ্যার পর থেকে ক্যাম্পাসে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। হামলার প্রতিবাদ জানিয়ে একদল শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে অবস্থা নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করে। তাদের অভিযোগ উপাচার্যের নির্দেশেই পুলিশ হামলা চালিয়েছে। এই বিক্ষোভ চলাকালেই বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ও হল ছাড়ার নির্দেশনা আসে।

রাত ৯টার পর বিক্ষোভকারী প্রধান ফটক ছেড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্ত মঞ্চের সামনে অবস্থান নেন। এসময় বিভিন্ন হলের শিক্ষার্থীরাও এসে যোগ দেন বিক্ষোভে। তারা উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমদের পদত্যাগ দাবিতে শ্লোগান দিতে থাকেন। রাত সাড়ে ১ টায়ও বিক্ষোভ চলছিলো।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী সায়েম বলেন,  পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ হয়ে উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা ও হল ছাড়ার নির্দেশনা দিয়েছেন। আচমকা হল ছাড়ার নির্দেশে শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েছে। এছাড়া করো্নার কারণে এমনিতেই শিক্ষাজীবন বিপর্যস্ত তার উপর বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের ঘোষনায় শিক্ষার্থীদের জীবন বিপন্ন হয়ে পড়বে।

আরেক আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী কায়েস বলেন, যে উপাচার্য শিক্ষার্থীদের উপর হামলার নির্দেশনা দিতে পারেন তিনি কোনোভাবেই ওই পদে থাকতে পারেন না।


এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. আলমগীর কবির বলেন, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সিন্ডিকেট সভার সিদ্ধান্ত মোতাবেক বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা ও হল ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সবাইকে সোমবার বেলা ১২টার মধ্যে হল ছাড়তে হবে। তিনি বলেন, উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে শিক্ষার্থীরাই সংঘাতময় পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে।

প্রসঙ্গত, বিশ্ববিদ্যালয়ের বেগম সিরাজুন্নেসা হলের প্রভোস্ট ও সহকারী প্রাধ্যক্ষদের পদত্যাগ, হলের যাবতীয় অব্যবস্থাপনা দূর করার দাবিতে বৃহস্পতিবার থেকে আন্দোলন করছেন শতাধিক ছাত্রী।

 

সিলেটসানডটকম/এমকেইউ

এ জাতীয় আরো খবর

নর্থ সাউথের ৪ ট্রাস্টিকে পুলিশে দেওয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের

নর্থ সাউথের ৪ ট্রাস্টিকে পুলিশে দেওয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের

হাল্ট প্রাইজের আঞ্চলিক পর্বে সিকৃবির দুই টিম

হাল্ট প্রাইজের আঞ্চলিক পর্বে সিকৃবির দুই টিম

প্রাথমিক শিক্ষা উপবৃত্তির অর্থ তোলা যাবে সক্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট থেকে

প্রাথমিক শিক্ষা উপবৃত্তির অর্থ তোলা যাবে সক্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট থেকে

২৩ দিনের ছুটি শেষ, আজ খুলছে শাবি

২৩ দিনের ছুটি শেষ, আজ খুলছে শাবি

মাস্টার্স শেষ পর্ব পরীক্ষা আজ শুরু

মাস্টার্স শেষ পর্ব পরীক্ষা আজ শুরু

এবার এইচএসসি পরীক্ষা হবে ২ ঘণ্টায়: সময় ও নম্বর বিভাজন প্রকাশ

এবার এইচএসসি পরীক্ষা হবে ২ ঘণ্টায়: সময় ও নম্বর বিভাজন প্রকাশ